মুখ খুললেন নুসরাত, মুসলিম হয়ে মাথায় কেন সিঁদুর !

বর্তমানে কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত জাহান সদ্য বিয়ে করেছেন। তাছাড়া হয়েছেন জনপ্রতিনিধিও। তার সংসদে যাওয়া, শপথ নেয়া সবই আলোচনার বিষয়। শাড়ি, মেহেদি, সিঁদুর পরে যখন শপথ নিচ্ছিলেন ফোকাস ছিল তার দিকেই। কিছুদিন আগে তুরস্কের বোদরুমে নিখিল জৈনকে বিয়ে করেছেন নুসরাত। সে কারণেই প্রথম দিন শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারেননি। বিয়ের পর সাজপোশাক নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। এ ব্যাপারে এক সাক্ষাৎকারে সে প্রশ্নের জবাবে নুসরাত বলেন, ‘আমার মাথায় সিঁদুর দেখে অনেকে প্রশ্ন করেছেন, আমি কি হিন্দুকে বিয়ে করে হিন্দু হয়ে গেলাম? আমার তো মনে হয় কোন ধর্ম অনুসরণ করব, সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার সবালের রয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘আমি জন্মসূত্রে ইসলাম ধর্মের অনুসারী।

সেটাই অনুসরণ করছি। কিন্তু সব ধর্ম এবং তার নিয়মের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে আমার। আমি এবং আমার স্বামী আমাদের ধর্ম পালন করছি। আমার তো মনে হয় এটাই স্বাভাবিক।’ এদিকে নুসরাতের কথায়, ‘আমি যে কতবার ট্রোলড হয়েছি, তার কোনো হিসেব নেই। আমার তো মনে হয় ট্রোলিং ভালোবাসারই ভিন্ন প্রকাশ। আসলে এ সবই মানুষ করেন দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য। মনোযোগ না পেলেই ট্রোলিং শুরু করেন। জীবনে নেগেটিভিকে কখনো গুরুত্ব দিইনি। কাজই সব সময় আমার হয়ে কথা বলেছে। এবারও তাই হবে।’ তাছাড়া ওই দিন সংসদে ঢোকার আগে সিঁড়িতে প্রণাম করেছিলেন নুসরাত। তিনি জানিয়েছেন, স্কুলে বা পরিবারে তিনি সেই শিক্ষাই পেয়েছেন। কাজ তার কাছে পবিত্র জিনিস। সংসদে নতুন পথ চলা শুরুর আগে তাই শ্রদ্ধা জানিয়েছিলেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখেই তার রাজনীতিতে আসা। মমতার লড়াকু মনোভাবকে তিনি কুর্নিশ জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে নুসরাত বলেন, ‘আমার লোকসভা এলাকার সাধারণ মানুষের প্রতিনিধি আমি। ওদের সাহায্য দরকার। তাই সংসদের কাজে আমি অংশ নেবই। ওদের যখনই সাহায্য প্রয়োজন, আমি আছি।

এখনো দেখতে ২৫-এর মতো, রহস্য জানালেন শিল্পা নিজেই: বলিউডের এক সময়ের পর্দা কাঁপানো চিত্রনায়িকা শিল্পা শেঠি। ৪৫ বয়সী এই নায়িকাকে এখনো দেখলে মনে হয় বয়স ১৮ থেকে ২৫ এর বেশি না। বয়স আটকে ফেলার এই রহস্য শিল্পা শেঠি উন্মুক্ত করে দিয়েছেন সবার জন্য। এই অভিনেত্রী বলেন, এর রহস্য একটাই, যোগব্যায়াম। নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে শরীরে বয়সের ছাপ পড়বে না, উল্টো আপনাকে আরো তরুণ দেখাবে। তবে শরীর ভাল রাখাটা যোগব্যায়ামের মাত্র একটা দিক। এটা মানসিক স্বাস্থ্যেরও যেভাবে উন্নতি করে, দেখার মতো। কিন্তু শর্ত একটাই, আপনাকে নিয়মিত চালিয়ে যেতে হবে। মাঝপথে ছেড়ে দিলে চলবে না।

যোগব্যায়াম করার ফলে শিল্পার মধ্যে কী কী পরিবর্তন এসেছে? সে সম্পর্কে বাজীগর খ্যাত এই অভিনেত্রী বলেন, নিয়মিত যোগব্যায়াম করার ফলে এখন আমার এনার্জি অনেক বেশি। আমার চিন্তাভাবনা অনেক ইতিবাচক। যোগব্যায়াম আমার মন পরিষ্কার রাখে। এখন আমার মাথা আগের চেয়ে অনেক বেশি ঠান্ডা। আমি যে পেশায় আছি, এতোদিনে তো আমার ফুরিয়ে যাওয়ার কথা। কিন্তু যোগব্যায়াম আমাকে ফিট থাকতে সাহায্য করে। গত এগারো বছর আমি কোনো ছবি করিনি। কিন্তু আমি মনে করি আমি এখনো ফুরিয়ে যাইনি। বর্তমানে শিল্পাকে বিভিন্ন রিয়েলিটি শোর বিচারক, বিজ্ঞাপন বা টেলিভিশন টকশোতে দেখা যায়। গেল ১১ বছরেও ছবি না করলেও এই সময়ে তার কাছে পাঁচটি সিনেমার স্ক্রিপ্ট পড়ে আছে। এর মধ্যে যেটা ভালো লাগবে সেই ছবির মাধ্যমেই সিনেমায় ফেরার কথা জানালেন তিনি।